মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২১st মার্চ ২০১৬

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনাঃ

১। যুবভবন নির্মাণ প্রকল্পঃ

 যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় ’যুবভবন’ নির্মাণ এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য। যুবভবনে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ বর্তমানে প্রয়োজনীয় স্থানের অভাবে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে কাজ করছেন । কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য কাজের সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি ও যুব কার্যক্রমে গতিশীলতা বৃদ্ধির নিমিত্ত বহুতল যুবভবন নির্মাণ করা হবে।

২। ছয়টি জেলায় বিদ্যমান ৬টি যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অবকাঠামো নির্মাণ প্রকল্প:

দেশের সকল জেলায় পরিচালিত প্রাতিষ্ঠানিক আবাসিক ও অনাবাসিক প্রশিক্ষণ কার্যক্রমকে একই ভেন্যুতে বাসত্মবায়নের নিমিত্ত প্রয়োজনীয় অবকাঠামোগত সুযোগ সুবিধা সৃষ্টির লক্ষ্যে ইতোপূর্বে ৬টি জেলায় স্থাপিত আবাসিক যুব প্রশিক্ষণ

কেন্দ্রসমূহের নির্মাণ কাজ সমাপ্তকরণ ও প্রশিক্ষণ সুবিধা বৃদ্ধি করা এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

৩। যুব কার্যক্রম বিষয়ক গবেষণা ও তথ্য প্রচার প্রকল্পঃ

যুব কার্যক্রমের সাফল্য গবেষণার মাধ্যমে প্রকাশ করা এবং যুব বিষয়ক তথ্য বেকার যুবসহ দেশের সকল পর্যায়ের মানুষের নিকট প্রচারের ব্যবস্থা করা এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

৪।  সিভিল কনস্ট্রাকশন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রকল্পঃ

বেকার যুবদের বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে ম্যাশন, রড বাই-ার, টাইলস ফিক্সার, শাটারিং, পস্নাম্বিং এ- পাইপ ফিটিংস এবং ওয়েল্ডিং এ- ফেব্রিকেশন বিষয় অমত্মর্ভুক্ত করে সিভিল কনস্ট্রাকশন ট্রেডে প্রশিক্ষণ কোর্সের আয়োজন করা এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

৫। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের বিভাগীয় কার্যালয় স্থাপন প্রকল্পঃ

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের আওতায় বিভাগীয় কার্যালয় স্থাপন ও নির্মাণ এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য। বিভাগীয় শহরে বিভাগীয় কার্যালয় স্থাপন ও নির্মাণ করা হবে।

৬। আঞ্চলিক যুব কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পঃ

এ প্রকল্পের আওতায় ৭টি বিভাগে একটি করে আঞ্চলিক যুব কেন্দ্র স্থাপন করা হবে। ফলে মাঠ পর্যায়ে যুব কার্যক্রম বাসত্মবায়নে গতি সঞ্চার হবে।

৭। বিউটিফিকেশন, হেয়ার কাটিং ও হাউজকিপিং বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রকল্পঃ

বেকার যুবক ও যুবমহিলাদের কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি এবং তাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

৮। ট্যুরিষ্ট গাইড, ট্যুর ম্যানেজমেন্ট এবং ইংরেজী ভাষা শিক্ষা প্রশিক্ষণ প্রকল্পঃ

বেকার যুবক ও যুবমহিলাদের কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি এবং তাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

 

৯। অবশিষ্ট ৫৮টি জেলায় বস্নক ও বাটিক প্রিন্টিং প্রশিÿণ সম্প্রসারণ এবং পোশাক তৈরী প্রশিÿণ জোরদারকরণ প্রকল্পঃ

চলমান পোষাক তৈরী প্রশিÿণ জোরদার করা এবং দেশের অবশিষ্ট ৫৮টি জেলায় বস্নক ও বাটিক প্রিন্টিং প্রশিÿণ কোর্স সম্প্রসারণ এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

১০। জেন্ডার, এইচআইভি, এইডস, প্রজনন স্বাস্থ্য এবং জীবন দÿতা বিষয়ক প্রকল্পঃ

জেন্ডার, এইচআইভি, এইডস, প্রজনন স্বাস্থ্য এবং জীবন দÿতা বিষয়ে যুবক ও যুবমহিলাদের সচেতনতা বৃদ্ধি করা এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য।

উপসংহার :

কোন দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে সে দেশের কর্মক্ষম জনশক্তি। আর এ জনশক্তির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে সে দেশের যুবসমাজ। বাংলাদেশের ন্যায় উন্নয়নশীল দেশের ক্ষেত্রে যুবশক্তিকে দেশের সার্বিক আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সম্পৃক্ত করার বিষয়টি অত্যমত্ম গুরম্নত্বপূর্ণ। যুবদের অফুরমত্ম প্রাণশক্তি, সৃজনশীল কর্মক্ষমতা, ক্লামিত্মহীন উৎসাহ, ঝড়ের ন্যায় গতিবেগ এবং তাদের কর্মস্পৃহা ও কর্মোদ্দীপনার উপর জাতীয় উন্নতি অনেকাংশে নির্ভরশীল।  মোট জনসংখ্যার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ যুব; যা আনুমানিক ৫ কোটি, এই বিরাট যুবশক্তিকে দেশের সার্বিক

অর্থনৈতিক উন্নয়নে সম্পৃক্ত করা প্রয়োজন। এ লক্ষ্যে অধিদপ্তরের কার্যক্রম তৃণমূল পর্যায় পর্যমত্ম আরো বিসত্মৃত করে দেশে এবং বিদেশে অধিকহারে কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। যুবদের ক্রমাগত শহরমুখী প্রবণতা রোধকল্পে যুবদেরকে স্বীয় অবস্থানে রেখে বিভিন্ন উৎপাদনমুখী বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে অত্যমত্ম  সহজ শর্তে ঋণ প্রদানের মাধ্যমে আত্মনির্ভরশীল করে গড়ে তুলতে হবে। ফলে কর্মমুখী ও উৎপাদনমুখী  প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে বেকার যুবসমাজ একদিকে যেমন নিজেদের জন্য কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবে, অন্যদিকে জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখতেও সÿম হবে।


Share with :